ব্লগ কি, ব্লগে কি লেখা যায় এবং কিভাবে ব্লগিং করবেন

ফ্রীল্যান্সিং এর কাজ শুরুর ৩১ দিনের এই ধাপের আজ হলো পঞ্চম দিন

July 5, 2017 0

আপনার কাহিনী বলুন ফ্রীল্যান্সিং কাজ শুরুর ৩১দিনের এই ধাপে আজ হলো পঞ্চম দিন ( অথবা নিজেকে আরো ভালো ভাবে তৈরি করার দিন)। ১ম দিন সম্পর্কে বিস্তারিত>>

best bangla blog

জীবনে যত শখ ও পেশাগত নেসা পরখ করেছি যেমন, পুতুল খেলা, গান, সিনেমা, বাগান করা, ভিডিও গেম খেলা, সেলাই এমন আরো অনেক। এগুলো জীবনে কিছু সন্তোসজনক ও দৃশ্যমান প্রভাব ফেলেছে; তবে সবচেয়ে বেশী প্রভাব ফেলেছে এবং পরিববর্তন আনতে সক্ষম হয়েছে ব্লগিং। যতগুলি সূচকেই বিচার করি না কেন ব্লগিং আমার কাছে সবচেয়ে প্রভাবশালী এবং  কার্যকর মনে হয়েছে।

অনেকেই বলেন ব্লগিং কি? কি জন্য? কিভবে ব্লগিং করতে হয়? ব্লগে কি লেখা যায়? ব্লগিং করে লাভ কি?

প্রকৃতপক্ষে, এটা একটা কর্মমুখী শখ, এবং একারনেই আমি অনেক বন্ধু বান্ধবদের ব্লগিং করার জন্য উৎসাহিত করে থাকি। ব্লগে ব্যক্তিগত তথ্য ও দৈনন্দিন কার্যকলাপসহ জার্নালও প্রকাশ করা হয়। একারনে আমার গল্পের চেয়ে ব্লগ, জীবন ও জীবিকায় যে পরিবর্তন এনেছে তা বলাই শ্রেয়। এভাবে জীবন ও জীবিকার সাথে সাথে আপনার জীবনের না বলা কথা, আপনার সৃষ্টিশীলতার প্রকাশ এবং সামাজিক পরিচয়কে আরও যথাযথ প্রকাশের জন্য ব্লগিং অনন্য।

এখানে কিছু ধারনা তুলে ধরছি যা আপনার এবং আপনার কাছের মানুষদের নানাভাবে প্রভাবিত করে থাকেঃ

how to blogging

১।     ব্লগার এবং লেখক:  আপনি একজন ভাল লেখক হতে পারেন। কৈশোর থেকে আজ পর্যন্ত লেখালেখির যে ইচ্ছাটা সুপ্ত ছিল তা ব্লগিং অনুশীলনের মাধ্যমে সানিয়ে তুলতে পারেন। এখানে গাইতে গাইতে গায়েন। আপনি লিখতে শুরু করুন দেখবেন আপনার কলম আরো বেশী সৃজনশীল হচ্ছে। এটাই বাস্তব, দেখুন না একবার চেষ্টা করে। কোন জোর জবরদস্তি নয়, ব্লগিং আপনাকে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই অনেক অনেক বেশী সৃষ্টিশীল করবে, আমি নিশ্চত। সেজন্য আপনাকে বিরাট কোন বই, এনসাইক্লোপিডিয়া বা মহাকব্য লিখতে হবে না। একটি বাস্তব ঘটে যাওয়া গল্প, একটি উপহারের কভারিং ইত্যাদি হয়ে উঠতে পারে প্রকাশের তরবারি।

২।    চিন্তার খোরাক:

why I should bloggingআপনার চিন্তা চেতনাকে আরো সানিত করতে পারেন ব্লগিং এর মাধ্যমে। কারন ব্লগিং আপনাকে চিন্তিত করে তোলার চেয়ে মুক্ত এবং স্বাভাবিক চিন্তার খোরাকি যোগান দিবে। বঙ্কিম যুগে সহজ কথাকে জটিল করে বলা ছিল সাহিত্যিকের দক্ষতা কিন্তু হুমায়ুন যুগে কিন্তু তা একরকম বাতিল। আপনি আপনার দিনপঞ্জি বা দৈনন্দিন ঘটনাবলীকে নিজের মত করে যত সহজ ও স্বাবলীলভাবে তুলে ধরতে পারবেন ভাষাশৈলী আপনার ততই উন্নত।

৩।   ব্লগিং এবং বিশ্বায়নঃ আপনার জীবনকে আরো অধিকতর আন্তর্জাতিকিকরন করবে।আপনি যখন লেখা শুরু করবেন আপনার সুশৃঙ্খল চিন্তাচেতনা লেখনিকে আরো সানিত করবে বিশ্বায়ন করবে।অপনার পরিচিতিকে বিশ্বময় ছড়িয়ে দেবে আরো বিস্তৃত পরিসরে। আপনার এই বিস্তৃত চিন্তা চেতনা এবং নতুন আত্মপরিচয়ই হয়তো আপনাকে ব্লগিং করতে আরো উৎসাতহিত করবে।

৪।    ভাল-মন্দ যাই হোক ঘটনাকে প্রাধান্য দিনঃ

eid journey can be blogging subject ভাল-মন্দ যাই হোক অর্থপূর্ণ ঘটনাপঞ্জী আপনার দৃষ্টিকে সম্প্রসাতরিত করবে। জীবনের ঘটে যাওয়া প্রতিটি ঘটনা ধারবাহিকভবে লিপিবদ্ধ করা সম্ভব নাও হতে পারে কিন্তু একটি ব্লগগে আপনি অফুরন্ত পন্থা হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন। যখন যে ঘটনাপঞ্জী আপনাকে আন্দোলিত করে তা যাচাই বাছাই করে লিখতে পারেন ব্লগে। সুতরাং, ব্লগিং জীবনের ঘটে যাওয়া ঘটনা, পরিকল্পনা, সম্ভাব্য ঘটনাপঞ্জীর একটি চলমান ইলেক্ট্রনিক ভার্সন যা অধিকতর পরিস্ফুটিত হয় আপনার পরিমন্ডল ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। যাই হোক ব্লগিং আপনার ব্যাক্তিত্ব ও বুদ্ধিবৃত্তিক যে পরিবর্তন সাধন করে তা প্রকৃতভাবে বুঝবেন যখন আপনি ব্লগিং শুরু করবেন। যেমন এই ব্লগে লিখতে চান? ক্লিক করুন এখানে।

৫।     সুস্থ্য ও স্বাবলীল জীবনাচরনঃ এটা অধিকতর সুস্থ্য ও স্বাবলীল জীবনাচরনে অভ্যাস্ত করে। ব্লগিং করতে প্রয়োজন হয় সময়, সময় জ্ঞান, একাগ্রতা, প্রতিশ্রুতি রক্ষার মত মহত গুন এবং সর্বোপরি শৃঙ্খলা। এবং এগুলো প্রত্যেকটি গুনই জীবনকে বিকশিত করে, নতুন করে বাচতে শেখায়, প্রতিদিন নতুন চিন্তা ও চেতনায় উদ্বুদ্ধ করে। আপনার বিক্ষিপ্ত চিন্তা চেতনাকে শুনিশ্চিত করে উপস্থাপন করে।ধরুন আপনি কিছু রং পছন্দ করেন কিন্তু সবচেয়ে বেশী পছন্দ কোনটা সেটা কখনও গুরুত্বের সাথে ভানেননি। আর আপনি যদি লিখতে যান, আপনি সুনির্দিষ্টভাবেই ভাববেন, লিখবেন যথাযথ ভাবে। সুতরাং ব্লগিং আপনাকে নবচেতনায় নবজন্ম দেয়।আর “জ্ঞানী লোকেরা প্রতিদিন নতুন করে জন্ম গ্রহন করে – ডেল কার্নেগী”

৬।   নতুনত্বঃ গিং প্লাটফর্মে আপনি নিত্য নতুন মানুষের সাথে পরিচিত হবেন। এটা হতে পারে মন্তব্যের মাধ্যমে, ইমেইলের মাধ্যমে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে (সোস্যাল মিডিয়া)। এভাবে দেখবেন আপনি বিশ্ময়কর সাড়া পাচ্ছেন যেটা হয়তো চিন্তাও করেন নি। অর্থাৎ মানুষের সাথে অপনার ইন্টার এ্যাকশন বৃদ্ধি পায়। সাধারনত ব্লগিং সম্প্রদায়ের সকলেই বন্ধু বৎসল, উৎসাহী এবং পরস্পরের সহযোগী হয়, আপনি তা উপভোগ করুন।

৭।    অর্থ নাকি আনন্দঃ

best bangladesh best bangla blogআপনি কিছু উপার্জন করবেন কিন্তু ব্লগিং উপভোগ করার জন্য আপনাকে টাকা উপার্জন করতেই হবে তা নয়। প্রকৃতপক্ষে, ব্লগিং করে একমাত্র টাকা উপার্জনের ইচ্ছা থাকলে তা আপনাকে একসময় ব্লগিং থেকে দুরে সরিয়ে দিতে পারে। এক্ষেত্রে ব্লগিং করে শুরুতে যে আনন্দ পেয়েছিলেন তা হতে বঞ্চিত হবেন। এজন্য শুধু ব্লগিং নয় যেকোন কাজ আপনি আনন্দের সাথে উৎসাহের সাথে করুন আর্থিক লাভ আপনার আসবেই।

৮।    নতুন উৎসাহঃ আপনি অন্যদেরও উৎসাহিত করুন। ব্লগিং শুধু আপনার জীবনকে পরিবর্তন করে না আপনার পাঠক বন্ধুদেরও জীবনের পরিবর্তন করবে, এটা নিশ্চিত। কারন ব্লগ সকলের জন্য মুক্ত যা সর্বস্তরের মানুষের কাছে সহজে পৌছানো সম্ভব।এটা বন্ধু তথা সর্বস্তরের মানুষকে উপহার প্রদানের এক উন্মুক্ত ময়দান।

৯।   মুক্ত চিন্তিার প্রকাশ:

where the mind is without fearব্লগিং জ্ঞান আদান প্রদানের একটি উৎকৃষ্ট মাধ্যম যা আপনার চিন্তা চেতনাকে আরো সুশৃঙ্খল করে। লেখক ও পাঠক উভয়ই তাদের মতামত প্রকাশ করে সম্পূর্ন মুক্ত ও স্বাধীনভাবে।লেখক তার মতামত প্রকাশ করে, আর পাঠকরা তাদের সুচিন্তিত মতামতের মাধ্যমে প্রকাশিত ভাবকে আরো অলঙ্করন ও সংশোধনের মাধ্যমে সম্প্রসারন ও বিকশিত করে।

১০।    খরচ নাই, সম্পুর্ণ ফ্রি: ব্লগিং সম্পুর্ন ফ্রি ও মুক্ত। ক্ষনস্থায়ী এমনকি স্থায়ীভাবে বিনা খরচে ব্লগিং চালিয়ে যাওয়া সম্ভব। ফ্রি ব্লগিং এর জন্য WordPress, Blogger সহ অনেক নির্ভরযোগ্য সফ্টওয়্যার উল্লেখ্য। অধিকন্তু অল্প খরচে Bluehost, Mochahost এর মত যে কোন ডোমেইন/হোষ্টিং কোম্পানী হতে ক্রয় করা যেতে পারে।

১১।    গাইতে গাইতে গায়েন: আপনিও ব্লগ লিখতে লিখতে আপনার জানার জগত আরো সম্প্রসারিত হবে। ব্লগিং আপনাকে বিশ্বব্যাপী পরিচিত করবে। আপনার সিদ্ধান্ত, আপনার লেখা আপনার পাঠক জগতকে আলোড়িত করবে। জীবনের কার্যক্রম আরো অধিক পরিশীলিত হবে। আপনার পাঠক সংখ্যা শত হোক আর সহস্র হোক তারা আপনার কর্মসমূহকে বিশ্বব্যাপী তুলে ধরে। প্রায়শ্য দেখবেন আপনার লেখা অভুতপূর্ব প্রসংসা ও উৎসাহ পাচ্ছে যা আপনার যা আপনার কল্পনাকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে।

১২।   ব্লগ জীননের ডিজিটাল দর্পন:

best bangla blogবলতে পারেন ব্লগ আপনার ব্যক্তিগত জার্নাল, দৈনন্দিন জীবনের ডিজিটাল দর্পন যা জীবনের অভিজ্ঞতাকে আরো সানিত করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দেয়। ভিড়ে হারিয়ে যাওয়া নয়, ব্লগ আপনাকে সকলের মাঝে প্রকাশের সুযোগ করে দেয়।

১৩।    জীবন নিয়ে আরো ভাবতে শেখায়: আপনি হবেন অরো আত্মবিশ্বাসী, প্রতিশ্রুতিশীল। আপনরা জীবন যে হেলা ফেলার নয় অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ তা আরো বেশী অনুধাবন করবেন।

১৪। ভাল লাগা মন্দ লাগা: ডিনার করেছেন, হোটেলটি বেশ ভাল লেগেছে, সম্প্রতি পড়া বইটি বেশ উপভোগ্য ছিল; শেয়ার করুন ব্লগে। আপনার আনন্দ অপরের সাথে শেয়ার করুন – সেটা আরো বেড়ে যাবে। আপানার ভাল লাগা, আপনার আবিস্কার সবই ভুমিকা রাখবে অন্যকে আনন্দ দিতে।

১৫।    দ্রুত সাড়া দিন:

be responsive in blogginব্লগ, ওয়েব বা সোস্যাল মিডিয়া যাই হোক শেয়ার করেছেন, অন্যের গঠনমূলক সমালোচনার দ্রুত সাড়া দিন।তাদের গঠনমুলক পরামর্শ স্বাদরে গ্রহন করুন। আক্রমনাত্বক না হয়ে নমনীয়তা প্রদর্শন করাই উত্তম।

শুধুমাত্র অর্থ উপার্জনের কথা চিন্তু না করে, অংশগ্রহন মুলক চিন্তা করুন, সৃজনশীল হোন, উপভোগ করুন; ব্লগিং ভাল লাগিবে।

best bangla blogলিখতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

2 Trackbacks & Pingbacks

  1. ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে চান? সিম্পলি এই ৪টি ধাপ অনুসরন করুন - Best Bangla Blog - Ureka IT
  2. ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে চান? সিম্পলি এই ৪টি ধাপ অনুসরন করুন – Best Bangla Blog – Ureka IT

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


Enjoy this blog? Please spread the word :)